Hon'ble VC Meets with the Journalists




যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডঃ মোঃ আনোয়ার হোসাইন দায়িত্ব গ্রহণের প্রথম দিন ২০-০৫-২০১৭ ইং তারিখ সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন। মাননীয় উপাচার্যের সঙ্গে সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ আবুল হোসেন, রেজিট্রার প্রকৌশলী আহসান হাবীব, বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন অধ্যাপক ড. বিপ্লব কুমার বিশ্বাস, ইকবাল কবির জাহিদ, নাসিম রেজা, প্রক্টর ড. মশিউর রহমান প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় মাননীয় উপাচার্যের বক্তব্য

আজকের এই মতবিনিময় সভায় উপস্থিত সকল প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক ও অনলাইনে কর্মরত সাংবাদিকদের স্বাগত ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। বক্তব্যের শুরুতে আমি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ ১৫ আগস্টে সপরিববারে নিহত এবং মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ বীর সেনানীদের প্রতি জানাই শ্রদ্ধা ও সালাম। আমাকে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের মহান দায়িত্ব দেওয়ায় মহামান্য রাষ্টপতি মো. আবদুল হামিদ, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আপনাদের মাধ্যমে ধন্যবাদ জানাই।

প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ, প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়ো-কেমিস্ট্রি বিভাগে যোগদানের মধ্য দিয়ে আমার শিক্ষকতা জীবনের সূচনা হয়। এরপর আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক হিসেবে যোগ দিই। এই বিভাগের চেয়ারম্যানেরও দায়িত্ব পালন করি। এ ছাড়া দেশ-বিদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং প্রফেসর ও ফেলো সহ নানা গবেষণামূলক কর্মকা-ে জড়িত রয়েছি। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট, সিন্ডিকেট, রিজেন্ট বোর্ড, একাডেমিক কাউন্সিলসহ নানা দায়িত্ব পালন করে আসছি। একজন সফল গবেষক হিসেবে নিজেকে এবং আমার গবেষণা দলকে প্রতিষ্ঠিত করতে সদা সচেষ্ট ছিলাম।

প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য হিসেবে আজকে আমার প্রথম কর্ম দিবস। তবে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় তথা যশোর আমার কাছে অপরিচিত নয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠালগ্নের প্রথম সিলেকশন বোর্ডের সদস্য হিসেবে এখানে এসেছি। সুতরাং তখন থেকেই এই বিশ্ববিদ্যালয় আমার কাছে পরিচিত।

আমি নিজেকে শিক্ষক ও গবেষক হিসেবে পরিচয় দিতে স্বাছন্দবোধ করি। আমি যতটুকু দেখেছি তাতে এই বিশ্ববিদ্যালয় যশোরবাসী তথা দেশবাসীর কাছে গর্ব এবং তাদের প্রিয় প্রতিষ্ঠান। সেই প্রেক্ষিতে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণামূলক কার্যক্রম এগিয়ে নিতে আমি আমার জ্ঞান, মেধা, পরিশ্রম ও অভিজ্ঞতা দিয়ে এগিয়ে নেওয়ারে সর্বচ্চো চেষ্টা করব।

একই সঙ্গে সরকার ঘোষিত ভিশন-২০২১ এবং রূপকল্প-২০৪১ বাস্তবায়নের জন্য একটি দক্ষ মানবসম্পদ তৈরি হলো এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কাজ। যেহেতু এটি একটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। সুতরাং এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম উদ্দেশ্য হলো নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন করে জাতির অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও কল্যাণ সাধন। এই লক্ষ্য অর্জনে শিক্ষক এবং গবেষকদের এক সাথে নিয়ে কাজ করব। আশা করি, অতিসত্ত্বর যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় একটি বিশ্বমানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে উঠবে, এটাই প্রত্যাশা করি।

প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমানে যদি কোনো সমস্যা থেকে থাকে, তাহলে তা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবার তথা শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে আলোচনা করে তা নিরসনের যথাসাধ্য চেষ্টা করব।

প্রিয় সাংবাদিবৃন্দ, আপনাদের কাছে উদাত্ত আহ্বান, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম অক্ষুণœ রাখার জন্য অতীতের মতো ভবিষ্যতেও আপনারা সার্বিক সহযোগিতা অব্যাহত রাখবেন। পরিশেষে আপনাদের সকলের সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামনা করছি এবং আমাদের এই প্রাণের বিশ্ববিদ্যালয় উপার্চায হিসাবে যে মহান দায়িত্ব আমাকে দেওয়া হয়েছে, তা যেন সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে পালন করতে পারি, এ জন্য সবার সহযোগিতা চাই। আপনাদের সবাইকে অশেষ ধন্যবাদ।

বিনীত
মো. আনোয়ার হোসেন, পিএইচডি
উপাচার্য
যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়