যবিপ্রবির নামে বঙ্গবন্ধু এবং প্রধানমন্ত্রীর বিকৃত ছবি না ছড়ানোর অনুরোধ

যশোর (১৪ জানুয়ারি, ২০১৯): যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯ সালের ডেস্ক ক্যালেন্ডারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যবহৃত ছবি বিকৃত করে প্রচার করা হচ্ছে। এ ধরনের বিকৃত ছবি প্রচার না করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি অনুরোধ জানানো যাচ্ছে।

প্রকৃতপক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেস্ক ক্যালেন্ডার আজ সোমবার থেকে যশোরের বিভিন্ন সরকারি অফিসে দেওয়ার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে বিতরণ করা শুরু হয়েছে। এর আগে কোনো ডেস্ক ক্যালেন্ডার বিতরণ করা হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মনে করে, বিতরণের পূর্বেই ডেস্ক ক্যালেন্ডারে ব্যবহৃত বঙ্গবন্ধু এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃত করে উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত ভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুণ্ণ করার জন্য একটি কুচক্রীমহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়েছে। সকলের জ্ঞাতার্থে জানানো যাচ্ছে, প্রকৃত ছবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজ https://www.facebook.com/justverifiedpage এবং ওয়েবসাইট www.just.edu.bd দেওয়া হয়েছে। এটা দেখলেই যে কেউ বুঝতে পারবেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি বিকৃত করা হয়নি।

 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সংবলিত ডেস্ক ক্যালেন্ডারের সংশ্লিষ্ট পৃষ্ঠার প্রকৃত ছবি

 

হীন স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য গুজব ছড়িয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হেয় করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে অনুরোধ, আপনারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকৃত ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়াবেন না। যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম ব্যবহার করে কেউ এটি ছড়ালে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শিক্ষক সমিতির সঙ্গে বৈঠক করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: আনোয়ার হোসেন। এ সময় অধ্যাপক ড. মো: আনোয়ার হোসেন শিক্ষক সমিতির নেতাদের আশ্বস্ত করে জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারি এবং শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে আনোয়ার হোসেন বিপুলকে যবিপ্রবি ক্যাম্পাসে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। কারণ উসকানির মাধ্যমে যে অশান্তি সৃষ্টি করবে, শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করবে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়, তাকে আমরা কেউ প্রশ্রয় দিতে পারি না।

শিক্ষক সমিতির নেতাদের উদ্দেশ্যে অধ্যাপক ড. মো: আনোয়ার হোসেন বলেন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় একাডেমিক ক্যালেন্ডার বাস্তবায়নের মাধ্যমে এখন বাংলাদেশের মধ্যে একটা পর্যায়ে চলে গেছে। এ সময় ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ থাকলে আমাদের সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে। সবার মঙ্গলের কথা চিন্তা করে আপনারা ক্লাস-পরীক্ষা অব্যহত রাখুন। এ সময় শিক্ষক সমিতির নেতারা আগামীকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠেয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সভায় বিষয়টি আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নেবেন বলে উপাচার্যকে আশ^স্ত করেন। বৈঠকে শিক্ষক সমিতির ২০১৮ এবং ২০১৯ সালের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।