যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্যালারিতে পরিবেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগ আয়োজিত একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: আনোয়ার হোসেন। ছবি: জনসংযোগ শাখা যবিপ্রবি

 

যবিপ্রবিকে গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে ঘোষণা

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্যালারিতে পরিবেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের আয়োজনে ‘ফার্স্ট ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন বায়োলজিক্যাল অ্যান্ড ইনভাইরনমেন্টাল রিসার্চ: রিসেন্ট ডেভোলপমেন্ট, চ্যালেঞ্জ অ্যান্ড ফিউচার প্রসপেক্টস (আইসিবিইআর-২০১৮) শীর্ষক দুই দিনব্যাপী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ছবি: জনসংযোগ শাখা, যবিপ্রবি

(যশোর, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮): যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়কে  (যবিপ্রবি) ‘গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয়’ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন  বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: আনোয়ার হোসেন। তিনি বলেছেন, ‘এতদিন যবিপ্রবি ছিল শুধুমাত্র একটি একাডেমিক বিশ্ববিদ্যালয়। আজ থেকে যবিপ্রবিকে গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয়  হিসেবে ঘোষণা করা হলো। প্রতি বছরে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে  দুটি বিশ্বমানের  গবেষণাগার তৈরি করা হবে।’

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্যালারিতে আজ রোববার পরিবেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগ আয়োজিত একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. মো: আনোয়ার হোসেন এ ঘোষণা দেন। বায়োলজিকাল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল রির্সাচ সম্পর্কিত প্রথম আন্তর্জাতিক সম্মেলন: সাম্প্রতিক উন্নায়ন, চ্যালেঞ্জ এবং ভবিষ্যত সম্ভাবনা (আইসিবিইআর-২০১৮) শীর্ষক দুই দিনব্যাপী এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ড. মো: আনোয়ার হোসেন বলেন, এ বিশ্ববিদ্যালয়ে দায়িত্ব গ্রহণের পর জেনোম সেন্টার এবং হ্যাচারি অ্যান্ড ওয়েট ল্যাবের কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ইতিমধ্যে একটি ‘অ্যানিমেল হাউজ’ ও ‘গ্লাস হাউজ’ তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। তবে বিজ্ঞান ভিত্তিক গবেষণা এগিয়ে নিতে প্রয়োজন সমন্বিত উদ্যোগ। আশা করি, আমাদের সকল শিক্ষক এবং শিক্ষার্থী আমাদের লক্ষ্য বাস্তবায়নে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখবেন।

সম্মেলনে প্রধান অতিথির ছিলেন পাট ও ইলিশের জীবন রহস্য উন্মোচনের গবেষণায় সাফল্য পাওয়া বিজ্ঞানী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণরসায়ন ও অণুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক হাসিনা খান। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য এই মুহূর্তে অর্থবহ গবেষণা প্রয়োজন। বর্তমান সরকার বেশি না হলেও গবেষণার জন্য যে বরাদ্দ দিচ্ছেন তা গবেষকদের জন্য ভিত্তি হিসেবে কাজ করছে। তিনি বলেন, প্রাকৃতিক সম্পদের প্রাচুর্যতা ফুরিয়ে যাচ্ছে। ফলে প্রাকৃতিক সম্পদের উপর ভিত্তি করে এখন আর কোনো দেশ বিত্তশালী হতে পারবে না। এ ক্ষেত্রে সম্পদের নতুন ক্ষেত্র তৈরির জন্য নিবিড় গবেষণা প্রয়োজন।

সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন ইউনিভার্সিটি অব ডেভোলপমেন্ট অলন্টারনেটিভের ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রহমতউল্লাহ, নেপালের ত্রিভূবন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক রেজিনা মাস্কি বায়ানজু। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণরসায়ন ও অণুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. জেবা ইসলাম সিরাজ, অধ্যাপক জুনঝাই (চীন) প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন যবিপ্রবির পরিবেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক ফারহানা ইয়াসমিন।

আইসিবিইআর-২০১৮ সম্মেলনে বক্তারা সম্মেলনে জীববিজ্ঞান ও পরিবেশবিজ্ঞান বিষায়ক ভবিষ্যত চ্যালেঞ্জ, গৃহিত সমাধান, ভবিষ্যত সম্ভাবনায় তরুণ পেশাদারদেও সক্রিয় অংশগ্রহণের জন্য বিশেষ জোর দেন। সম্মেলনে বিশ্বের চারটি দেশের প্রতিনিধিত্বকারি ১৭০টির বেশি প্রতিনিধি দল অংশগ্রহণ করেছে। সম্মেলনে মোট ২০০টি গবেষণার সংক্ষিপ্তসার জমা পড়ে। এরমধ্যে ১৪২টি উপস্থাপনার জন্য চূড়ান্তভাবে গৃহিত হয়। আগামীকাল সম্মেলনের শেষ দিন।

 

 

 

বার্তা প্রেরক
মো: আব্দুর রশিদ
জনসংযোগ কর্মকর্তা
যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়,
যশোর-৭৪০৮।