যশোরবাসীর জন্য আজ এক গৌরবোজ্জ্বল দিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে বর্বর পাকিস্তানীদের হাত থেকে বাংলাদেশের প্রথম মুক্ত জেলা হিসাবে আত্ম-প্রকাশ করে যশোর।
বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, যবিপ্রবি শাখার উদ্যোগে আজ যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (যবিপ্রবি)- তে পালন করা হয় ঐতিহাসিক যশোর মুক্ত দিবস। দিবসটি উদযাপনের অংশ হিসেবে সকাল ১০.৩০ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে আনন্দ সমাবেশ বের করা হয়। উক্ত সমাবেশটি সমগ্র বিশ্ববিদ্যালয় প্রদক্ষিন শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থিত জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে পুস্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শেষ হয়।
উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক শেখ আবুল হোসেন। তিনি বর্তমান মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য রাখেন। যবিপ্রবি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড এর আহবায়ক মো. হায়াতুজ্জামানের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন পরিচালক (হিসাব) জাকির হোসেন, পরিচালক (প ও উ) পরিতোষ কুমার বিশ্বাস, প্রধান প্রকৌশলী হেলাল উদ্দিন পাটোয়ারী, উপ-গ্রন্থাগারিক স্বপণ কুমার বিশ্বাস, কর্মচারী সমিতির সভাপতি সাজ্জাদুল আলম রনি, সাধারণ সম্পাদক রমিজ উদ্দীন, যুগ্ম-আহবায়ক রাজু আহম্মেদ, সদস্য- শামসির জাহান রানা, সহকারী ডাটা বেজ প্রোগ্রামার (আইসিটি সেল) এস.এম. ওয়ালিউজ্জামান, রুমেল রহমান রনি, সদস্য সচিব রবিউল ইসলাম, আজমল হোসেন, ইসমতারা পারভীন, হাবিবুর রহমান, মাহমুদুল হোসেন, সরদার ফরিদ আহম্মেদ, সুদিপ্ত শাহীন, হাফিজ আল আসাদ, আব্দুল ওহাব, ফয়সাল কবির, সেলিম রেজা, হাফিজুর রহমান, রবিউল ইসলাম, জহির উদ্দিনসহ প্রমুখ উক্ত অনুষ্ঠানে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খাদেম মোঃ রবিউল ইসলাম।

 

বার্তা প্রেরক

(মোঃ হায়াতুজ্জামান)
সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ)
যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
যশোর-৭৪০৮